সর্বশেষ

» সেন্সর প্রযুক্তির অপপ্রয়োগের মাধ্যমে স্ট্রোক ।। ড. মোঃ রহিমুল্যাহ মিঞা

প্রকাশিত: 10. June. 2020 | Wednesday

(Misuse of Sensor Technology to create Stroke in brain).

স্ট্রোক কী?

স্ট্রোক হল মস্তিষ্কে আক্রমণ। এটি ঘটে যখন আপনার মস্তিস্কের কিছু অংশে রক্ত সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। রক্ত আপনার মস্তিস্কে প্রয়োজনীয় পুষ্টি এবং অক্সিজেন বহন করে। রক্ত ছাড়া আপনার মস্তিষ্কের কোষগুলি ক্ষতিগ্রস্থ বা ধ্বংস হতে পারে এবং তারা তাদের কাজটি করতে সক্ষম হবে না। যেহেতু আপনার মস্তিষ্ক আপনার শরীরের সমস্ত কিছু নিয়ন্ত্রণ করে, একটি স্ট্রোক আপনার দেহের কার্যকারিতা প্রভাবিত করবে। উদাহরণস্বরূপ, যদি একটি স্ট্রোক আপনার মস্তিষ্কের যে অংশটি আপনার ডান পা নিয়ন্ত্রণ করে তবে ক্ষতি করে তবে আপনার সেই পাটিতে দুর্বলতা বা অসাড়তা থাকতে পারে। আপনি কীভাবে ভাবছেন, শিখবেন, অনুভব করবেন এবং যোগাযোগ করবেন তা আপনার মস্তিষ্কও নিয়ন্ত্রণ করে। স্ট্রোক হঠাৎ করে এবং আপনার শরীরে এর প্রভাবগুলি তাৎক্ষণিক হয়। সিভিএ এর অর্থ সেরিব্রোভাসকুল এক্সিডেন্ট বা দুর্ঘটনা (স্ট্রোকের চিকিৎসাক্ষেত্রে নাম)।

স্ট্রোক কীভাবে হয়?

মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহ বন্ধ করে স্ট্রোক ঘটানো হয়, আর তা হচ্ছে: (ক) রক্ত চলাচলে বাধাদান বা ইস্কেমিক স্ট্রোক, (খ) রক্তক্ষরণ বা হেমোরাজিক স্ট্রোক। সেন্সর টেকনোলজির অপপ্রয়োগের মাধ্যমেও স্ট্রোক হয়।

কিভাবে প্রযুক্তির অপপ্রয়োগের মাধ্যমে স্ট্রোকে ভুগে?

আপনি অফিসে বা বাসায় বসে/শুয়ে আছেন। আপনার আসে-পাশে মোবাইল ফোন বা সেন্সর ডিভাইস থাকলে আপনার অবস্থান অতিসহজেই জানা যায়। তাছাড়া, মোবাইল ফোন না থাকলেও উক্ত স্থানে কথা-শব্দ, হাসি-কান্না, হাই-কাশি বা খোলা চোখে থাকা প্রভৃতির মাধ্যমেও আপনার অবস্থান জানা যায়। আপনার আস-পাশ থেকে টেলিম্যাটিক্স যন্ত্রের মাধ্যমে আপনার শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের দূরত্ব জানা যায়, তারপর সিটিস্ক্যান বা এমআরআই এর মতো সফ্টওয়্যার দিয়ে ডিজিটাল স্ক্যানিং করা হয় আপনার ক্যারোটিড ধমনী। এরপর উক্ত জায়গার কানেকটিভ টিস্যুতে রিমোট সেন্সিং এর মাধ্যমে কম ফ্রিকুয়েন্সির তড়িৎ চৌম্বকীয় বল প্রয়োগ করা হয় টেলিম্যাটিক্সের সাহায্যে। ক্যারোটিড ধমনীতে মোবাইল সেন্সর হওয়ার পর সঙ্কুচিত হয়ে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে যায় আর ব্রেইনের সেরিব্রাল ধমনীতে হঠাৎ রক্ত জমাট বাধতে থাকে, তখনই উক্ত ব্যক্তি মাথা ঘুরে পড়ে যায় এবং স্ট্রোকে ভুগে।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭৩ বার

[hupso]
Shares