সর্বশেষ

» সৎ সঙ্গ পারে সুপথে পরিচালিত করতে | শওকত আখঞ্জী 

প্রকাশিত: 05. February. 2021 | Friday

একটা প্রবাদ আছে সুপরিচিত যা হল “সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস, অসৎ সঙ্গে সর্বনাশ” শেখ সাদী (রহ:)

মানুষ একাকী কিংবা বিচ্ছিন্ন ভাবে বসবাস করতে পারেনা তার জন্য মানুষ সঙ্ঘবদ্ধ হয়ে বসবাস করে।
মানুষের চলতে ফিরতে পরিবার পরিজনের পাশাপাশি বন্ধু অথবা সঙ্গ প্রয়োজন হয় তাই উত্তম বন্ধু যেমন জীবনের গতি পাল্টে দিতে পারে, ঠিক তেমনি রুপে একজন অসৎ বন্ধু জীবনকে ধ্বংসের চূড়ান্ত সীমায় পৌঁছে দিতে পারে ।

সঙ্গ নিয়ে কবি তার ভাষায় লিখেছেন “অসৎ বন্ধু থেকে দূরে থাকো, কেননা সে বিষাক্ত সাপ থেকেও ভয়ংকর হয়।
বিষাক্ত সাপ কেবল তোমার জীবনের ক্ষতি করবে কিন্তু অসৎ বন্ধু তোমার জীবনের সাথে সাথে তোমার ঈমানও শেষ করে দিবে”

তাই তো ইসলাম ধর্মে অসৎ ব্যক্তিদের কাছ থেকে দূরে থাকার জন্য বারংবার তাগিদ দেয়া হয়েছে।
মহান আল্লাহপাক রাব্বুল আলামীন বলেছেন “যারা আল্লাহর আয়াতের বিপরীতে কথা বলে তাদের সাথে চলোনা।যদি তাদের সাথে চলাফেরা কর তাহলে তোমরাও তাদের মত হয়ে যাবে”। “মুমিনগণ যেন অন্য মুমিনকে ছেড়ে কোন কাফেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ না করে।
যারা এমনটি করবে! আল্লাহ তাদের সঙ্গে কোন সম্পর্ক রাখবেন না”।

রাসূল (সা.) বলেছেন “দুনিয়াতে যার সঙ্গে বন্ধুত্ব ও ভালোবাসা রয়েছে, পরকালে তার সঙ্গেই হাশর হবে”
“মানুষ তার বন্ধুর আদর্শে গড়ে ওঠে! সুতরাং বন্ধু নির্বাচনের সময় খেয়াল করা উচিত সে কাকে বন্ধু বানাচ্ছে”।

কারো মধ্যে ভালো গুণ দেখে বন্ধুত্ব করার পরও যদি তার মধ্যে খারাপ গুণ দেখা যায়! তাহলে কি করতে হবে? এক্ষেত্রে প্রথমে তাকে সংশোধনের চেষ্টা করতে হবে। কিন্তু সে যদি নিজেকে সংশোধন করতে রাজি না হলে! যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সে বন্ধুর সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে।

তাই বলে একেবারে বন্ধুহীন থাকলে চলবে না!কারণ “বন্ধুহীন জীবন নাবিক বিহীন জাহাজের মতো”
একজন প্রকৃত বন্ধুই সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্নার অংশীদার হয়। প্রকৃত বন্ধুই পারে আত্মার আত্মীয় হয়ে কিছুক্ষণের জন্য হলেও দুঃখ-কষ্টকে ভুলিয়ে রাখতে।
এই বিষয়ে নিটসে বলেছেন “বিশ্বস্ত বন্ধু হচ্ছে প্রাণ রক্ষাকারী ছায়ার মতো। যে তা খুঁজে পেলো, সে একটি গুপ্তধন পেলো”

বন্ধু নির্বাচনের ক্ষেত্রে ইমাম গাযযালী (রহঃ)বলেছেন-
সবাইকে বন্ধু নির্বাচন করা যাবে না!বন্ধু নির্বাচনের ক্ষেত্রে ৩টি গুণ দেখে বন্ধু নির্বাচন করা উচিত। গুণ তিনটি হল-
১. বন্ধুকে হতে হবে জ্ঞানী ও বিচক্ষণ।
২.বন্ধুর চরিত্র হতে হবে সুন্দর ও মাধুর্যময়।
৩. বন্ধুকে হতে হবে নেককার ও পুণ্যবান।

তথ্যসংগ্রহকারী লেখক
শওকত আখঞ্জী
উন্নয়নকর্মী ও কলামিস্ট।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩২৩ বার

[hupso]
Shares